মাগুরায় মসজিদ বানানোয় সাকিবকে তসলিমার কটুক্তি

খেলাধুলা

মাগুরা সংবাদ :

 

 

বরাবরই ধর্মের প্রতি সাকিব আল হাসানের অনুরাগের বিষয়টি বিভিন্ন সময়ে সংবাদমাধ্যমে উঠে এসেছে। সেই ধারাবাহিকতায় এবার মাগুরার আলোকদিয়ার বারাশিয়ায় নানাবাড়ি এলাকায় মসজিদ নির্মাণ করে দিয়েছেন সাকিব। গত বছরের এপ্রিলে মসজিদটি উদ্বোধন করা হয়।

কিন্তু সাকিবের এই মসজিদ নির্মাণকে কেন্দ্র করে তার সমালোচনায় মেতেছেন প্রখ্যাত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজে তসলিমা লিখেছেন, ‘সাকিবের প্রচুর টাকা। নিউ ইয়র্কে বিশাল বাড়ি তার। আর কোন কোন শহরে বাড়ি কিনেছেন জানা নেই আমার। তবে আজকের খবর হলো, তিনি তার নানাবাড়ি মাগুরায় একখানা মসজিদ বানিয়ে দিয়েছেন। আমার প্রশ্ন, ওখানে কি অভাব ছিল মসজিদের? আমি নিশ্চিত, অভাব ছিল না। যদি অভাব কিছুর থেকে থাকে তবে ভালো হাসপাতালের, ভালো কলেজের, ভালো বিজ্ঞান একাডেমির, ভালো ন্যাচারাল হিস্টরি মিউজিয়ামের, ভালো পাবলিক লাইব্রেরির।’

তসলিমা নাসরিন আরো বলেন, ‘কিন্তু সাকিব তার টাকার শ্রাদ্ধ করলেন কচুরিপানা ভর্তি পুকুরে আরও একখানা কচুরিপানা ছেড়ে। কী হবে এরপর? ক’দিন পর মসজিদের ইমাম কোনও শিশুকে ধর্ষণ করবেন, ক’দিন পর মুয়াজ্জিন করবেন, ক’দিন পর মসজিদ কমিটি একটি ধর্ষণাগার ওরফে মাদ্রাসা বানানোর জন্য সাকিবের কাছে আবেদন করবেন। দৃশ্যগুলো তো আমরা চোখ বুজেই দেখতে পাচ্ছি।’

জানা গেছে, সাকিব আল হাসানের নানাবাড়ি মাগুরা সদরের বারাশিয়া এলাকায়। বারাশিয়া জামে মসজিদটি ১৯৮২ সালে নির্মাণ করা হয়। মসজিদে জায়গা কম থাকায় চার কাতারে একশর বেশি লোক নামাজ আদায় করতে পারতেন না। মসজিদটি আধুনিকও ছিল না। পরবর্তীতে সাকিব আল হাসানকে বললে তিনি মসজিদটি নির্মাণ করে সুসজ্জিত করে দেন। বারাশিয়া পূর্বপাড়া জামে মসজিদটি নির্মাণে প্রায় ৩৫ লাখ টাকার মতো খরচ হয়েছে। একতলা বিশিষ্ট ওই মসজিদের ভেতরে ছয়টি কাতার করা হয়েছে। প্রতি কাতারে ৪০ জনের মতো মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *