মহম্মদপুরে কিস্তির টাকা দিতে না পেরে আত্মহত্যা:কবর থেকে লাশ তোলার হুমকি

মহম্মদপুর

মাগুরা সংবাদঃ

মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলায় এনজিও’র কিস্তির টাকা দিতে না পেরে নায়েব আলি নামের এক ব্যাক্তি বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। নায়েব আলি মহম্মদপুর উপজেলার মহেশপুর গ্রামের মৃত পাইক মোল্লার ছেলে। অভাব অনাটনের সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে তার।

জানা যায়, গত ২ মাস আগে নায়েব আলি বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেন। এরপর থেকে সংসারে আরও অভাব অনটনের মধ্যে পড়ে গেলে কিস্তির টাকা পরিশোধ করা অসম্ভব হয়ে পড়ে ।এর মধ্যে অনেকে ঋণের টাকা মার্জিত করে দিলেও মহম্মদপুর উপজেলার ডাঙ্গাপাড়া ব্রাক ব্রাঞ্চ থেকে তাদেরকে দেওয়া হচ্ছে চরমভাবে মানসিক চাপ । ওই বাঞ্চের মহিলা ম্যানেজার প্রায় তার সহকর্মী লোকজনদের নিয়ে মৃত ব্যাক্তির বাড়িতে যেয়ে অকথ্য ভাষায় আজেবাজে কথা বলা সহ মৃত ব্যাক্তির লাশ তুলে নেয়ার হুমকি জানায় । এনজিও প্রতিষ্ঠানটি এখনো সুদে আসলে ১৮-২০ হাজার টাকা পাবে বলে জানা যায়। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, সংসারের খরচ যোগাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন নায়েব আলি। এক পর্যায়ে বিভিন্ন বেসরকারি এনজিও থেকে চড়া সুদে ঋণ নিয়েছিলেন তিনি। এর কিছুদিন পর থেকেই বাড়িতে পাওনাদারের আনাগোনা শুরু হয়। সঠিক সময়ে কিস্তির টাকা দিতে না পারলে এনজিও’র লোকজন বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে নায়েবের ওপর। এজন্য তিনি মাঝে মধ্যেই বাড়ি থেকে পালিয়ে বেড়াতেন। তার ফেরার খবর পেলেই এনজিও’র লোকজন বাড়িতে এসে হাজির হতো। সামান্য বসতভিটা ছাড়া তার কোনো জমিজমাও ছিল না। ফলে বাড়তে থাকে মানসিক জ্বালা। অবশেষে সে জ্বালা মেটালেন বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *