মাগুরা যেতে অস্বীকার করায় প্রেমিকার ঘরে প্রেমিকের আত্মহত্যা

বাংলাদেশ

মাগুরা সংবাদ:

ফরিদপুরে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় প্রেমিকার বাড়িতে আত্মহত্যা করেছে এক কলেজের ছাত্র। ওই ছাত্রের নাম আশিক রানা (১৯)। ১৫ আগস্ট, শনিবার সকাল ১০টায় তার ঝুলন্ত অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।

আলফাডাঙ্গা উপজেলার বানা ইউনিয়নের কঠুরাকান্দি গ্রামে শরীফ হারুন-অর-রশীদের দোতলা বাড়ির একটি রুম থেকে ওই লাশ উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, আশিক রানা সৌদি আরব প্রবাসী আলমগীর শেখের ছেলে। তিনি ফরিদপুর মুসলিম মিশন কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী। তার অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী মারিয়ার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। মারিয়া একই এলাকার হারুন-অর-রশীদের মেয়ে।

এদিকে আশিককে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে তার পরিবার। আশিকের চাচা জাহাঙ্গীর হোসেন বানা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

এ বিষয়ে জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘রাতে খবর পেয়ে হারুন শরীফের বাড়িতে গিয়ে দোতলা বিল্ডিংয়ের পুকুর পাড়ের একটি নির্জন রুমে আমার ভাতিজার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পাই। হারুন শরীফ পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমার ভাতিজা আশিক রানাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে লাশটি ঝুলিয়ে রাখে।’

এ অভিযোগ অস্বীকার করে শরীফ হারুন-অর-রশীদ বলেন, ‘আমার মেয়ে মারিয়ার সঙ্গে আশিক ফোনে আগেপরে কথা বলতো বলে জেনেছি। ওইদিন আমার স্ত্রী বাসায় না থাকার সুযোগে আশিক আমার মেয়ের সঙ্গে দেখা করতে আমার বাড়িতে যায়। কথাবার্তার এক পর্যায়ে আশিক মারিয়াকে গোপনে বিয়ের কথা বলে মাগুরা যাওয়ার প্রস্তাব দেয়। মারিয়া গোপনে বিয়ে ও মাগুরা যেতে অস্বীকার করলে আশিক আত্মহত্যার হুমকি দেয়। এ কথা শুনে মারিয়া নিজের রুম থেকে অন্য রুমে চলে যায়। পরবর্তীতে ভেতর থেকে রুমের দরজা বন্ধ করে গলায় গামছা বেধে আত্মহত্যা করে আশিক।’

এ বিষয়ে আলফাডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রেজাউল করিম বলেন, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করেছি এবং সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুরে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *