মহম্মদপুরে ভাইয়ের লাঠির আঘাতে নয় বরং হার্ট এ্যাটাকে কৃষক আসাদের মৃত্যু

মহম্মদপুর

মাগুরা সংবাদ:

মতিন রহমান :


মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলার ধোয়াইল গ্রামে গত রবিবার (১৭ই মে ) বিকালে রশিদ ও আসাদ শেখ নামের আপন দুই ভাইয়ের মাঝে কলাগাছ কাটাকে কেন্দ্র করে ঝগড়া শুরু হয়। এর এক পর্যায়ে আসাদ শেখ হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। অসুস্থ অবস্থায় তাকে মহম্মদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে সেখান থেকে তার অবস্থা অবনতি হলে ডাক্তারা ফরিদপুর মেডিকেলে নেওয়া পরামর্শ দেয়।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আসাদের মৃত্যু হয়। এসময় মৃত আসাদ শেখের এলাকায় তার ভাইয়ের সাথে ঝগড়ার একপর্যায়ে লাঠির আঘাতে আসাদ শেখের মৃত্যু হয়েছে বলে কথা রটে এবং নানা অপপ্রচার চালানো হয়। রশিদ শেখ ও আসাদ শেখ ধোয়াইল গ্রামের মৃত আমিনউদ্দিনের ছেলে।

এবিষয়ে সঠিক তথ্য জানতে এই প্রতিবেদক গতকাল সোমবার রাত ১১ টার দিকে মহম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারক বিশ্বাসের সঙ্গে সরাসরি কথা বলেন। উক্ত বিষয়ে তারক বিশ্বাস জানান, ঘটনার দিন মৃত আসাদ শেখের পরিবার দাবী করে লাঠির আঘাতে নয় স্বাভাবিক ভাবে স্ট্রোক করে আসাদ এবং পরে ফরিদপুর মেডিকেলে তার মৃত্যু হয়। এরপর ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তার হার্ট এ্যাটাকে মৃত্যু হয়েছে এমর্মে ডেড সার্টিফিকেট দেয়। কিন্তু পরে বিভিন্ন কারণে লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়।

তারক বিশ্বাস আরো জানান, আসাদের পরিবারের দাবী এবং ডাক্তারী ডেট সার্টিফিকেটের ভিত্তিতে আমরা এটাকে হার্ট এ্যাটাকে মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করছি। পুলিশের পক্ষ থেকেও ধারনা করা হচ্ছিল যে এটা স্ট্রোক জনিত সমস্যা হয়েছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে বিষয়টি পুরোপুরি ভাবে জানা যাবে এবং নিশ্চিত করা যাবে বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *