মহম্মদপুরে ছাত্রকে বলৎকার করে হুজুর পালাতক

মহম্মদপুর

মাগুরা সংবাদঃ

মাগুরা ছাত্রকে বলৎকার করে হুজুর পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।এলাকাবাসীসূত্রে জানাযায়,মহম্মদপুর উপজেলার নহাটা ইউপির ইন্দ্রপুর হারেছিয়া এতিম খানার এক ছাত্রকে সোমবার রাতে নিজ কক্ষে ডেকে নিয়ে এ ঘটনা ঘটায় মাদরাসার শিক্ষক হাফেজ মো:শরিফুল ইসলাম।ঐ ছাত্র পালিয়ে বাড়ীতে চলে গিয়ে বিষয়টি তার মা বাবা বলে দেয়,ছাত্রকে এতিম খানায় না দেখে বিষয়টি বুঝতে পেরে মঙ্গলবার ঐ লম্পট শরিফুল পালিয়ে যায়,এর আগেও সে এ ধারনের কাজ করলেও এতিখানা স্বার্থে তা ধামাচাপা দেওয়া হয়। দুই সন্তানে জনক হাফেজ শরিফুল ইসলাম নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার জয়পুর ইউপির চাচই গ্রামের মৃত ফুলমিয়ার ছেলে।নহাটার পানিঘাটা গ্রামে বিয়ের সুবাদে এলাকার লোকজন তাকে এই এতিম খানায় বাচ্চাদের পড়ানোর জন্য নিয়োগ দেন।এতিম খানা মসজিদে নিয়মিত নামাজ আদায় করেন এমন কয়েকজন মুসল্লি জানায়,মঙ্গলবার ফজরের নামাজ আমরা ঐ শরিফুলের ইমামতিতে আদায় করি,দুপুরে যোহরের নামাজ পড়তে গেলে তাকে আর পাওয়া যায়নি,পরে ছাত্রদের কাছ থেকে আমরা বিয়ষটি জানতে পারি।ভিকটিম শিশুটির মা বলেন,আমরা গরীব মানুষ ঐ হুজুরের বিরুদ্ধে ভয়ে মামলা করতে পারছিনা,এলাকার লোকজন ও এতিমখানার কমিটির কাছে বিচার দিয়েছি তারা এখনও কোন বিচার করেনি,বরং কমিটির কেউ কেউ উল্টে আমাদের গরম দেয়,আমরা ঐ বেয়াদবের কঠিন শাস্তি চাই,যাতে সে এমন জঘণ্য কাজ আর কারও সাথে করতে না পারে।এতিমখানার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা কামরুজ্জামান বলেন,সে যে এমন একটা কাজ করবে আমরা বুঝতে পারিনি,সে আমাদের এতিমখানার চরম ক্ষতি করলো।এদিকে ঐ শিক্ষক(হুজুর) হাফেজ শরিফুলের 01840958040 এই মোবাইল নম্বাররে দীর্ঘ সময় ধরে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *