আমাদেরকে বাঁচান,আমরা আমাদের পরিবারকে নিয়ে বাঁচতে চাইঃমাগুরার সেকায়েপ শিক্ষকরা

শিক্ষা

মাগুরা সংবাদঃ

আমাদেরকে বাঁচান,আমরা আমাদের পরিবারকে নিয়ে বাঁচতে চাই বললেন সেকায়েপ এ কর্মরত  মাগুরা জেলার মহম্মদপুরের অতিরিক্ত শ্রেণি শিক্ষক মো: আল ইমরান। মাগুরা সংবাদে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই কথা বলেন।

মাগুরায় বন্ধ হয়ে আছে মাধ্যমিক শিক্ষার মান উন্নয়ন প্রকল্প-সেকায়েপ (সেকেন্ডারী এডুকেশন কোয়ালিটি এন্ড একসেস এনহ্যান্সমেন্ট প্রজেক্ট)-এর অতিরিক্ত শ্রেণি শিক্ষকদের (এসিটি) বেতন-ভাতা। ফলে উক্ত শিক্ষককরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

২০১৫ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে সারা দেশের নির্ধারিত ২ হাজার স্কুল ও মাদ্রাসায় প্রায় ৬ হাজার অতিরিক্ত শ্রেণি শিক্ষককে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেওয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় শিক্ষা মন্ত্রনালয় মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলায় নিয়োগ দিয়েছিল ৪৬ জন শিক্ষককে। কিন্তু নিয়োগ পাবার পর থেকেই  শিক্ষকরা বেতন সংক্রান্ত সমস্যায় ভুগছেন।এদিকে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। মেয়াদ শেষে এসিটি শিক্ষকদের প্রকল্প পরিচালক ও শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তারা স্কুলের সাথে সম্পৃক্ত থাকার পরামর্শ দেন। সেকায়েপ অফিসে বারবার যোগাযোগ করেও এ ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত জানা যায়নি। অন্যদিকে ঠিকমতো বেতন না পাওয়ার দরুণ অনেক শিক্ষক চাকরি ছেড়ে দেওয়ার চিন্তা করছেন। পাশাপাশি অর্থকষ্টে শিক্ষকদের যাপিত জীবনের দৈন্যদশার বিরূপ প্রভাবও যথাযথ পাঠদানে বিঘ্ন সৃষ্টি করছে। তাই কর্তৃপক্ষের কাছে এসিটি শিক্ষকদের আবেদন দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করে এই সমস্যার সমাধান করার। এতে প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্যও পূরণ হবে উপরন্তু দূর হবে শিক্ষকদের দৈন্যতাও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *